starbangla.tv l tv channel l News & Program
Welcome
Login / Register

Latest Articles


  • জরুরী ভিত্তিতে সারাদেশে সাংবাদিক নিয়োগ করবে স্টার বাংলা ( আইপি) অনলাইন টেলিভিশন !

    আপনি কি সাংবাদিকতায় আগ্রহী ?

    সাংবাদিকতায় আগ্রহী শিক্ষিত, নতুন, কর্মঠ, দেশপ্রেমিক ও অভিজ্ঞ অনলাইন এক্সপার্টদের খুঁজছে স্টার বাংলা অনলাইন টেলিভিশন স্টার বাংলা.টিভি। দেশের প্রতিটি বিভাগ, জেলা, উপজেলা ও ক্যাম্পাস প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে ।
    আগ্রহীরা সিভি পাঠান এই ঠিকানায়: videostarbanglatv@gmail.com
    আমাদের ওয়েবসাইট- IPTV : www.starbangla.tv
    ফেসবুক : www.facebook/starbanglafan
    তথ্য জানতে : ০১৭২৭৯৩২৬৫২, ৯৩৫৪৯৯২
    নিউজটি শেয়ার করে সকল বন্ধুদের দেখার সুযোগ করে দিন ।

    Read more »
  • সহজে ঠোঁট ফাটা ঠেকানোর উপায়

    শীতের সময় আবহাওয়া থাকে শুষ্ক। বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ ব্যাপকভাবে কমে যায়। এতে ত্বক হয়ে যায় রুক্ষ, খসখসে। ঠোঁটের বারোটা বাজে সবার আগে। এ সময় অনেকেরই ঠোঁট ফাটে, কথা বলা ও হাসির ক্ষেত্রে যা বিড়ম্বনা সৃষ্টি করে।

     

    ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে অনেকেই চ্যাপস্টিক আর লিপবাম ব্যবহার করেন। এসব উপাদান হয়তো সাময়িক স্বস্তি দেয়, তা কিন্তু দীর্ঘমেয়াদি সমাধান নয়। লিপবাম বা চ্যাপস্টিকের বিকল্প হিসেবে প্রাকৃতিক উপায়ে ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে পারেন। জেনে নিন কীভাবে ঠেকাবেন ঠোঁট ফাটা:

    মধু-ভ্যাসলিন: মধুতে ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধী উপাদান আছে। ভ্যাসলিন বা পেট্রোলিয়াম জেলি ত্বককে শুষ্কতা থেকে রক্ষা করে নরম রাখে। তাই মধু ও ভ্যাসলিন মিশিয়ে মাখলে ঠোঁট ফাটার উপশম হবে।

    ঘৃতকুমারী: এটি শুধু ত্বকের জন্য উপকারী নয়; ত্বকের শুষ্কতা দূর করতে এবং ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে পারে। এতে যে প্রাকৃতিক উপাদান আছে, তা নিয়মিত ঠোঁটের সংস্পর্শে এলে ঠোঁট ফাটা সারে।
    অলিভ অয়েল: এটি প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার ও লুব্রিকেন্ট। এতে যে ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে, তা ত্বকের শুষ্কতা দূর ও ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে পারে। দিনে দুবার ঠোঁটে অলিভ অয়েল মাখলে ঠোঁট নরম ও মসৃণ হয়।
    নারকেল তেল: ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে দীর্ঘদিন ধরেই নারকেল তেলের ব্যবহার দেখা যায়। এতে প্রচুর পরিমাণ ফ্যাটি অ্যাসিড আছে, যা ঠোঁটের শুষ্কতা দূর করে। ঠোঁট ফাটা ঠেকাতে নিয়মিত নারকেল তেল লাগাতে পারেন।

    Read more »
  • যে কারণে সাবেক সঙ্গীকে ভোলা যায় না

    সম্পর্ক শেষ বললেই কি সম্পর্ক শেষ হয়ে যায়? বিচ্ছেদের পরও অনেক সময় সঙ্গীকে ভোলা যায় না। তার সঙ্গে কাটানো মুহূর্ত, দীর্ঘদিন একসঙ্গে থাকার কারণে তার ওপর নির্ভরশীলতা—সব মিলিয়ে চাইলেই আগের সম্পর্ক মন থেকে মুছে ফেলা যায় না। আর কী কী কারণে সাবেক প্রেমিক বা প্রেমিকাকে ভোলা যায় না, তার কিছু কারণ জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া। একনজরে দেখে নিন কী সেগুলো।

    ১. মায়ার কারণে

    সম্পর্কে আকর্ষণ না থাকা, ভাবনার অমিল, সন্দেহ—এসবই মূলত সম্পর্ক বিচ্ছেদের কারণ। কিন্তু সম্পর্ক না থাকলে ভালোবাসাও কি থাকে না? সঙ্গীর সঙ্গে দীর্ঘদিন থাকায় তার প্রতি এক ধরনের আকর্ষণ ও মায়া চলে আসে। চাইলেই তা থেকে বেরিয়ে আসা সম্ভব হয় না। তাই অনেকেই সম্পর্ক বিচ্ছেদের পরও সাবেক সঙ্গীর কথা ভাবেন।

    ২. কিছু না থাকার চেয়ে সামান্য কিছু থাকা ভালো

    মূলত এটা একটা প্রবাদ। সাবেক সঙ্গীর সঙ্গে ডেট করতে পারেন না, তাতে কী? অনেকের ধারণা, কিছু না থাকার চেয়ে মাঝেমধ্যে কথা বলা এবং দেখা করা মন্দ নয়। এমন ভাবনার কারণে অনেকে সাবেক সঙ্গীর সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন।

    ৩. বন্ধু হয়ে থাকা

    সম্পর্ক বিচ্ছেদের পরও আপনি যদি সাবেক প্রেমিক বা প্রেমিকার সঙ্গে বন্ধুত্ব বজায় রাখেন, তাহলে বুঝতে হবে তাকে এখনো ভালোবাসেন। এত কিছুর পরও সেই সঙ্গীর কাছে থাকার এটাই কারণ।

    ৪. ভুলতে না পারা

    অনেকেই সম্পর্ক ভাঙতে মোটেই পছন্দ করেন না। সে কারণে বিচ্ছেদ হওয়ার পর সেটা মেনে নিতে পারেন না। তাই মনের শান্তির জন্যই সাবেক সঙ্গীর দ্বারস্থ হন।

    ৫. আগ্রহের কারণে

    সে কী করছে, অন্য কোনো সম্পর্কে জড়াল কি না, কোথায় আছে এমন অনেক প্রশ্ন সাবেক প্রেমিক বা প্রেমিকাকে নিয়ে অনেকের মনে ঘুরপাক পায়। তাই এ বিষয়গুলোর প্রতি আগ্রহের কারণেই অনেকে সাবেক সঙ্গীকে নিয়ে চিন্তা করেন।

    Read more »
  • প্রেমে মজেছেন কাটরিনা!

    বলিউড লাভবার্ড খ্যাত রণবীর কাপুর ও কাটরিনা কাইফের আলোচিত প্রেমকাহিনী শেষ হয়েছে অনেকদিন আগেই। এরপর অনেকবারই সম্পর্ক জোড়া লাগাতে চেয়েছেন কাটরিনা। শুধু তাই নয়, করণ জোহরের চেষ্টাও চলে সেখানে। কিন্তু শেষতক সব চেষ্টা বিফলে গিয়ে বিচ্ছেদ অব্যাহত থাকে দুজনের। কয়দিন আগেও শোনা গেছে তাদের সম্পর্ক ঠিক হয়ে গেছে। কিন্তু সেটা আর হয়নি। রণবীরকে হারিয়ে কতটা অসহায় হয়ে পড়েছিলেন নায়িকা সেটা বোঝা গেছে বিভিন্ন সাক্ষাৎকারেই। কিন্তু সম্প্রতি তার হাবভাব দেখে মনে হচ্ছে, শেষমেশ বোধহয় হতাশা থেকে বেরিয়ে এসেছেন কাটরিনা। মুভ অন করতে শুরু করছেন। নিত্যনতুন বন্ধুত্বে জীবনকে আবার উপভোগ করতে চাইছেন। এটা খুব স্বাভাবিকই বলা চলে। একজন মানুষ কখনোই একা চলতে পারেন না। চলার পথে কোনো না কোনো সঙ্গী দরকার পড়ে। আর সেই তাগিদ থেকেই হয়তো নতুন প্রেমে মজেছেন কাটরিনা। এমন খবর নিয়েই কানাঘুষা চলছে বলিউডে। কিছুদিন আগেই  মুকেশ অম্বানি-পুত্র আকাশ অম্বানির সঙ্গে হাতে হাত ধরে একটি পার্টিতে দেখা গিয়েছিল কাটরিনাকে। এখানেই জল্পনার শুরু। মূলত গসিপ হয়েছিল দু’জনের বয়সের ব্যবধান নিয়ে ও ভারতের সবচেয়ে ধনী এলিজিবিল ব্যাচেলরকে এবার তার মোহময়ী রূপে কাবু করতে চাইছেন কাটরিনা, এই ধরনের গসিপও হয়েছে। এ ব্যাপারটি নিয়ে চর্চা এখনও বন্ধ হয়নি। অথচ তার মধ্যেই অন্য এক কাপুরের হাতে হাত রেখে হাঁটতে দেখা গেল কাটরিনাকে। মুম্বইয়ে গ্লোবাল সিটিজেন ফেস্টিভ্যালে রণবীর কাপুর ও পরিণীতি চোপড়ার সঙ্গে ‘কোল্ডপ্লেু’-র কনসার্ট শুনতে গিয়েছিলেন কাটরিনা। সেখানেই তাকে অর্জুন কাপুরের হাত ধরে ঘুরতে দেখা গেল। দুজনের হাতে হাত ধরা অবস্থায় দেখে গুঞ্জন শুরু হয়ে যায়, তবে কি এবার নতুন কাপুরের সঙ্গে প্রেমে মজেছেন নায়িকা? মুম্বইয়ের একটি গসিপ ম্যাগাজিনের বক্তব্য, হাত ধরলেও এই দু’জনের মধ্যে অন্য কিছু চলছে না। দু’জনেই দু’জনকে বহুদিন ধরে চেনেন এবং বেশ পছন্দও করেন কিন্তু সেই পছন্দটা যে অন্য রকম কিছু, সেটা এখনও ঠিক স্পষ্ট নয়।

    Read more »
  • প্রিয় দলের খেলা দেখতে টয়লেটে রাত পার

    ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে শনিবার ওল্ড ট্রাফোর্ডে খেলা ছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আর আর্সেনালের। সেই খেলা দেখতে শুক্রবার রাতে দু’জন সমর্থক ম্যানইউয়ের স্টেডিয়ামের এক টয়লেটের ভেতর লুকিয়ে থাকেন। ওই দুজন স্টেডিয়াম দেখতে আসা এক দল লোকের সঙ্গে ঢুকেছিলেন দর্শনার্থী হিসেবে। পরে তারা দল থেকে কেটে পড়েন খেলা দেখার জন্য। শনিবার সকালে স্টেডিয়াম পুলিশকে বুঝিয়ে দেয়ার জন্য শেষবারের মতো তল্লাশি চালানোর সময় ধরা পড়েন ওই দুজন। পুলিশ অবশ্য তাদের আটক না করে ছেড়ে দিয়েছে। তাদের কাছে ক্ষতিকর কিছু ছিল না বলে জানায় ক্লাব কর্তৃপক্ষ। মাস ছয়েক আগে ওল্ড ট্রাফোর্ডেই বোর্নমাউথের বিপক্ষে খেলার আগে স্টেডিয়ামের কোনার এক টয়লেটে সন্দেহজনক পোটলা পাওয়ায় খেলা বাতিল করতে হয়েছিল। পরে অবশ্য দেখা গিয়েছিল তাতে কোন বিস্ফোরক জাতীয় কিছু ছিল না। সেদিনের খেলায় ম্যানচেস্টার আগে গোল করেও জিততে পারেনি আর্সেনারের সঙ্গে।

    Read more »
  • রোহিঙ্গাদের হাজারো ঘরবাড়ি ধ্বংস:এইচআরডব্লিউ

    মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের সহস্রাধিক বাড়িঘর ধ্বংস করে ফেলা হয়েছে। উপগ্রহ চিত্র বিশ্লেষণ করে আজ সোমবার এ দাবি করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)। 
    মিয়ানমারের বাংলাদেশসংলগ্ন সীমান্তে প্রচুর সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। দেশহীন এই মুসলিম সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের বড় অংশের বসবাস এই সীমান্তসংলগ্ন এলাকাতেই। 
    গত মাসে সীমান্ত এলাকাগুলোতে কয়েকটি পুলিশ চৌকিতে হামলা হয়। এরপর থেকেই মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় এ রাজ্যে বেশ কয়েক দিন ধরে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান শুরু করেছে। কথিত এ অভিযানের নামে সেখানে থাকা রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়ন চলছে বলে আন্তর্জাতিক মহলে নিন্দার ঝড় উঠলেও এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে মিয়ানমার সরকার
    জাতিসংঘ বলেছে, চলমান সহিংসতায় ৩০ হাজার মানুষ উদ্বাস্তু হয়ে পড়েছে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী হেলিকপ্টার থেকে বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে হামলা শুরুর করে। মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম বলেছে, নিরাপত্তা বাহিনীর হামলায় এ পর্যন্ত ৭০ জনের বেশি নিহত হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয় চার শতাধিক মানুষকে। তবে নিরপেক্ষ বিভিন্ন সূত্র বলছে, নিহত এবং গ্রেপ্তারের প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি। 
    এই সহিংসতার পরিপ্রেক্ষিতে কয়েক শ রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে। 
    মানবাধিকারকর্মীদের দাবি, নিরাপত্তা বাহিনী রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়ন চালাচ্ছে। সেখানে হত্যা, ধর্ষণ এবং লুটতরাজের ঘটনা ঘটছে। ধ্বংস করা হয়েছে অনেক বাড়িঘর। 
    এত সব নিপীড়নের ঘটনার পরও মিয়ানমার সরকারের এখন অলিখিত প্রধান নোবেল বিজয়ী অং সান সু চি নিপীড়নের সব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন। 
    আজ এইচআরডব্লিউ বলেছে, নভেম্বরের ১০ থেকে ১৮ তারিখ পর্যন্ত পাঁচ গ্রামের কয়েক শ বাড়িঘর ধ্বংস করা হয়েছে। আর সব মিলিয়ে ১ হাজার ২৫০টি বাড়িঘর ধ্বংসের চিত্র পাওয়া গেছে। 
    এইচআরডব্লিউয়ের এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস বললেন, সামরিক আমলের মতো কোনো অভিযোগ প্রত্যাখ্যানের সংস্কৃতি বাদ দিয়ে মিয়ানমার সরকারকে এখন সত্য তথ্যের দিকে তাকাতে হবে।’এএফপি

    Read more »
RSS
উপদেষ্টা : এডভোকেট মামুনুর রশিদ মামুন
কৃষিবিদ এম. সগিরুল ইসলাম মজুমদার ( জাপান)
প্রধান সস্পাদক: ডা: এম এ মতিন,
সম্পাদক: মো: জিয়াউল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: নেছার উদ্দিন মজুমদার
অফিস: ৩৫ পুরানা পল্টন লাইন নীচতলা, ভি আই পি রোড ঢাকা-১০০০
ফোন: ০১৭২৭৯৩২৬৫২, ৯৩৫৪৯৯
জাপান ডেক্স +৮১৯০৬৮৬৩৪৭৩৩২
ইমেইল: videostarbanglatv@gmail.com