starbangla.tv l tv channel l News & Program
Welcome
Login / Register

আন্তর্জাতিক


  • রোহিঙ্গাদের হাজারো ঘরবাড়ি ধ্বংস:এইচআরডব্লিউ

    মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের সহস্রাধিক বাড়িঘর ধ্বংস করে ফেলা হয়েছে। উপগ্রহ চিত্র বিশ্লেষণ করে আজ সোমবার এ দাবি করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)। 
    মিয়ানমারের বাংলাদেশসংলগ্ন সীমান্তে প্রচুর সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। দেশহীন এই মুসলিম সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের বড় অংশের বসবাস এই সীমান্তসংলগ্ন এলাকাতেই। 
    গত মাসে সীমান্ত এলাকাগুলোতে কয়েকটি পুলিশ চৌকিতে হামলা হয়। এরপর থেকেই মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় এ রাজ্যে বেশ কয়েক দিন ধরে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান শুরু করেছে। কথিত এ অভিযানের নামে সেখানে থাকা রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়ন চলছে বলে আন্তর্জাতিক মহলে নিন্দার ঝড় উঠলেও এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে মিয়ানমার সরকার
    জাতিসংঘ বলেছে, চলমান সহিংসতায় ৩০ হাজার মানুষ উদ্বাস্তু হয়ে পড়েছে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী হেলিকপ্টার থেকে বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে হামলা শুরুর করে। মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম বলেছে, নিরাপত্তা বাহিনীর হামলায় এ পর্যন্ত ৭০ জনের বেশি নিহত হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয় চার শতাধিক মানুষকে। তবে নিরপেক্ষ বিভিন্ন সূত্র বলছে, নিহত এবং গ্রেপ্তারের প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি। 
    এই সহিংসতার পরিপ্রেক্ষিতে কয়েক শ রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে। 
    মানবাধিকারকর্মীদের দাবি, নিরাপত্তা বাহিনী রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়ন চালাচ্ছে। সেখানে হত্যা, ধর্ষণ এবং লুটতরাজের ঘটনা ঘটছে। ধ্বংস করা হয়েছে অনেক বাড়িঘর। 
    এত সব নিপীড়নের ঘটনার পরও মিয়ানমার সরকারের এখন অলিখিত প্রধান নোবেল বিজয়ী অং সান সু চি নিপীড়নের সব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন। 
    আজ এইচআরডব্লিউ বলেছে, নভেম্বরের ১০ থেকে ১৮ তারিখ পর্যন্ত পাঁচ গ্রামের কয়েক শ বাড়িঘর ধ্বংস করা হয়েছে। আর সব মিলিয়ে ১ হাজার ২৫০টি বাড়িঘর ধ্বংসের চিত্র পাওয়া গেছে। 
    এইচআরডব্লিউয়ের এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস বললেন, সামরিক আমলের মতো কোনো অভিযোগ প্রত্যাখ্যানের সংস্কৃতি বাদ দিয়ে মিয়ানমার সরকারকে এখন সত্য তথ্যের দিকে তাকাতে হবে।’এএফপি

    Read more »
  • ইতালি হোটেলে অন্তঃসত্ত্বা হলে থাকা ফ্রি!

    স্বামী-স্ত্রী ঘুরতে গিয়ে হোটেলে থাকবেন। আর সেই সময় যদি স্ত্রী গর্ভধারণ করেন, তাহলে ওই দম্পতির হোটেল ভাড়া দিতে হবে না। ইতালির আসিসি শহরের কয়েকটি হোটেল এমন সুযোগ দিয়েছে।

     

    স্থানীয় পর্যটন ব্যবসার প্রসার এবং দেশের জন্মহার বাড়ানোর লক্ষ্যে এমন উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির ফার্টিলিটি রুম প্রকল্প ও স্থানীয় পর্যটন কাউন্সিলর। কোনো দম্পতি ওই হোটেলগুলোতে অবস্থান করার নয় মাস পর জন্ম নেওয়া তাঁদের সন্তানের জন্মসনদ দেখালে ভবিষ্যতে হোটেলগুলোতে বিনা মূল্যে থাকতে পারবেন। অথবা চাইলে নয় মাস আগে হোটেলে থাকার ভাড়া ফেরত নিতে পারবেন।

    ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম জন্মহার ইতালিতে। বিশ্বের নিম্ন জন্মহারের তালিকায় থাকা অন্যতম দেশও ইতালি। ২০১৫ সালের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, দেশটিতে প্রতি হাজার দম্পতির মধ্যে মাত্র আটটি শিশুর জন্ম হয়েছে।

    ইতালির ফার্টিলিটি রুম প্রকল্পের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘একটি সন্তান জন্ম দেওয়া গভীর প্রেমের প্রকাশ। তাই জীবনের সব ধরনের জটিলতা পাশ কাটিয়ে সন্তান জন্মদানে উৎসাহিত করা উচিত।’

    তবে আসিসি শহরের স্থানীয় অনেকে এই প্রকল্প থেকে নিজেদের দূরে সরিয়ে রেখেছে। আমব্রিয়ার আঞ্চলিক কাউন্সিলর ক্লদিও রিচি এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, এ উদ্যোগ আসিসি অঞ্চলের ভাবমূর্তির ওপর কোনো প্রভাব ফেলে কি না বা পর্যটন প্রসারের জন্য উপযুক্ত কি না, তা খতিয়ে দেখা হবে।

    Read more »
  • কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক, স্বীকার করলেন নারী

    কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের কথা আদালতে স্বীকার করলেন অস্ট্রেলিয়ার এক নারী। ২৭ বছর বয়সী ওই নারীর নাম জেনা লুইস ড্রিসকো। এ ঘটনায় তাঁর কারাদণ্ড হতে পারে।

    জেনা অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড প্রদেশের ব্রিসবেন শহরের বাসিন্দা। চলতি বছরের আগস্টে জেনার বিরুদ্ধে তাঁর পোষা কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনসহ চারটি অভিযোগ আনা হয়। তিনি বিচারকের সামনে এ অভিযোগগুলো স্বীকার করেছেন।

    স্থানীয় সময় আজ শুক্রবার জেনাকে ব্রিসবেন জেলা আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় সেখানে তাঁর পক্ষের আইনজীবী জেমস গডবোল্ট উপস্থিত ছিলেন। 

    আইনজীবী জেমস গডবোল্ট বলেন, জেনাকে প্রকাশ্যে লজ্জা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া জেনা তাঁর প্রেমিকের অনুরোধেই কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন।

    বিচারক টেরি মার্টিন উপস্থিতিতে জেনা আরো স্বীকার করেন, তিনি একজনের শরীরে কাঁটাচামচ ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন ও এক শিশুকে কামড় দিয়েছিলেন। এ ছাড়া তিনি মাদকদ্রব্য চোরাচালানের সঙ্গেও জড়িত। 

    ২০১৪ সালে মাদক চোরাচালান বিষয়ে অনুসন্ধান চালানোর সময় জেনার মোবাইলে তিনটি আপত্তিকর ভিডিও পায় পুলিশ। এরপর বিষয়টি আদালতে নিষ্পত্তির জন্য তোলা হয়।

    সে সময় আদালতের এক শুনানিতে একটি ছবি উপস্থাপন করা হয়। ছবিটিতে দেখা যায়, জেনা একজন অপরিচিত ব্যক্তি ও একটি পোষা কুকুরের সঙ্গে বাড়িতে ঢুকছেন।

    স্থানীয়রা জানান, জেনা ওই ব্যক্তি আর কুকুরটির সঙ্গে খুব অল্প সময় বাড়িতে ছিলেন। পরে তাঁরা একটি গাড়িতে করে স্থান ত্যাগ করেন।

    Read more »
  • ভারতে নোট বাতিল নিয়ে মমতার কবিতা!

    ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি  গত মঙ্গলবার  ৫০০ ও এক হাজার রুপির নোট বাতিলের ঘোষণা দেন। কালো অর্থ কমানো এবং দুর্নীতিমুক্ত ভারত গড়তে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

    তবে এ ঘোষণায় ক্ষোভে ফেটে পড়েছিলেন বাংলা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি মোদিকে মোহাম্মাদ বিন তুঘলকের সঙ্গে তুলনা করেন।

    এবার নোট বাতিলের বিরুদ্ধে ব্যতিক্রমী প্রতিবাদের ভাষা হিসেবে একটি কবিতাই লিখে ফেলেছেন।  মমতার সেই কবিতাটি এনটিভি অনলাইনের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।  

    ‘রাজধর্ম লোকধর্ম

    অসহিষ্ণুতার অহর্নিশি

    একেশ্বরের একাধিপত্যে 

    লক্ষ্যভেদ তির বিষ।।

    ক্ষুদ্রজনে করলে আঘাত,

    আঘাত বিদ্ধ জনগণ

    দণ্ডদানের প্রবল অত্যাচারে 

    লক্ষীর ঝাঁপি হারাল ধনজন।

    একদিনে সবারে ভিখারি করলে

    তুমি পরলে স্বৈরাচারী সাজ!

    গরিবরা হলো ‘কালো অর্থ’

    আর তোমরা হলে মহারাজ!

    এত তাড়াতাড়ি, এত হুড়োহুড়ি

    কেন পরিকল্পনাহীন স্বপ্ন!

    সাধারণ মানুষের সব কিছু কেড়ে

    গরিবদের হৃদয় করলে ভগ্ন।।

    সাধারণ মানুষকে শাস্তি দিয়ে 

    কি করে ঢাকবে লাজ?

    পাপীদের দিলে অর্থ বাঁচিয়ে

    সবার ধিক্কার আজ।

    প্রাপ্য আধিকার কেড়ে নিয়ে 

    বঞ্চিত করলে যাদের 

    তাদের আবার ভিক্ষার নামে 

    সাময়িক দুহাজার দিচ্ছ তাদের।”

    কবি হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতার বেশ সুনাম রয়েছে। এর আগেও বিভিন্ন ঘটনাকে বিষয়বস্তু করে কবিতা লিখেছেন তিনি।

    Read more »
  • ভারতে ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিল ঘোষণা

    ভারতে ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। জাতির উদ্দেশে আজ দেওয়া এক ভাষণে এ ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আজ মধ্যরাত থেকে এসব নোট বাতিল কার্যকর হবে। 
    ভাষণে মোদি বলেন, ‘কাল থেকে এসব নোট শুধু কাগজ ছাড়া আর কিছুই নয়।’ জাল নোট এবং কালো রুপির বিতরণ রুখতেই এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানান মোদি। ভাষণে মোদি বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন উপায়ে ১ লাখ ২৫ হাজার কোটি রুপি ফিরিয়ে এনেছি।’ 
    সরকারি ঘোষণায় বলা হয়, যাঁদের হাতে এসব নোট আছে, তাঁরা এগুলো জমা দিয়ে ১০ নভেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে সমমূল্যের অর্থ পাবেন। তবে এ জন্য তাঁদের আধার কার্ড, প্যান কার্ড বা ভোটার আইডি দেখাতে হবে। ব্যাংক ও পোস্ট অফিস থেকে নোট জমা দিয়ে অর্থ পাবেন এর বাহকেরা। 
    ৩০ ডিসেম্বরের পর শুধু রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া বাতিল হওয়া এসব নোট নেবে। আজ মধ্যরাত থেকে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত ভারতের সব এটিএম বুথ বন্ধ থাকবে। আগামীকাল ব্যাংকগুলোও বন্ধ থাকবে। আগামী কয়েক দিন এটিএম বুথ থেকে সর্বোচ্চ ২০০০ রুপি পর্যন্ত তোলা যাবে। পরে এর পরিমাণ বাড়িয়ে চার হাজার রুপি পর্যন্ত করা হবে। হাসপাতাল, সমাধিক্ষেত্রে পুরোনো নোট গ্রহণ করা হবে। ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিল হলেও অন্য নোটগুলো যেমন ১০০, ৫০, ১০, ৫, ২ ও ১ রুপির নোট চালু থাকবে।

    Read more »
RSS
উপদেষ্টা : এডভোকেট মামুনুর রশিদ মামুন
কৃষিবিদ এম. সগিরুল ইসলাম মজুমদার ( জাপান)
প্রধান সস্পাদক: ডা: এম এ মতিন,
সম্পাদক: মো: জিয়াউল ইসলাম
সহ-সম্পাদক: নেছার উদ্দিন মজুমদার
অফিস: ৩৫ পুরানা পল্টন লাইন নীচতলা, ভি আই পি রোড ঢাকা-১০০০
ফোন: ০১৭২৭৯৩২৬৫২, ৯৩৫৪৯৯
জাপান ডেক্স +৮১৯০৬৮৬৩৪৭৩৩২
ইমেইল: videostarbanglatv@gmail.com